May 21, 2024, 1:11 pm
শিরোনাম
জাবিতে কুরআনের অনুবাদ পাঠ প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে দেশটা: বিএনপি মহাসচিব ‘চ্যারিটি ফান্ড কেইউ’ এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু পবিপ্রবিতে বিশ্বকবির ১৬৩ তম জন্মজয়ন্তী উদযাপন একজন আইনজীবীর প্রথম দায়িত্ব হচ্ছে মানুষের অধিকার রক্ষার জন্য কাজ করা : অ্যাটর্নি জেনারেল জাবিতে ছাত্রলীগ সম্পাদকের বান্ধবীকে নিয়োগ দিতে তোড়জোড় যুক্তিতর্ক দেখে সবাই ভাবতো ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে এসেছি : শাহ মনজুরুল হক ইবিতে মুজিব মুর‍্যালে এ্যাটর্নি জেনারেলের শ্রদ্ধা নিবেদন  বাংলাদেশ পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে জনগণের নিরাপত্তা দিয়ে আসছে : আইজিপি ইবি অধ্যাপক ড. ইকবাল হোসাইনের আত্মার মাগফিরাতে দোয়া মাহফিল

বাবরির পর এবার জ্ঞানবাপী মসজিদের দিকে নজর ভারতের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : Friday, April 9, 2021,
  • 19 বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মুঘল আমলের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নিদর্শন ঐতিহাসিক বাবরী মসজিদের পর এবার জ্ঞানবাপী মসজিদ নিয়েও কাদা ছোড়াছুড়ি শুরু হয়েছে ভারতে। 

ভারতের বারানসিতে অবস্থিত এই মসজিদের নিচে হিন্দু মন্দিরের চিহ্ন রয়েছে কিনা তা খোঁজার নির্দেশ দিয়েছে স্থানীয় একটি আদালত। কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরের পাশেই এই মসজিদের অবস্থান। 

দেশটির সনাতন ধর্মাবলম্বীদের দাবি, ১৬৬৪ সালে মুঘল সম্রাট আওরঙ্গজেব তথাকথিত প্রাচীন এক মন্দির ভেঙে নাকি সেখানে মসজিদটি নির্মাণ করেন। এ নিয়ে ১৯৯১ সালে আদালতে একটি পিটিশন দায়ের হয়েছিল। 

বৃহস্পতিবার ৩০ বছরের পুরোনো সেই পিটিশনের শুনানিতে বারানসি আদালত ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থাকে (এএসআই) মসজিদটির নীচে মন্দিরের কোনো ধ্বংসাবশেষ আছে কিনা তা  অনুসন্ধানের নির্দেশ দিয়েছে। মূলত মসজিদটি মন্দিরের জায়গায় বানানো কিনা তা জানতেই উদ্যোগ।

এএসআইয়ের মহাপরিচালককে বিষয়টি তদন্তের জন্য পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি করতে বলা হয়েছে, যার মধ্যে দুজন সংখ্যালঘু (মুসলিম) সম্প্রদায়ের সদস্য থাকতে হবে। কমিটির কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের জন্য প্রসিদ্ধ কাউকে নিয়োগ দেয়ারও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এই প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপের মূল উদ্দেশ্য হবে ‘বিতর্কিত স্থানে’ বর্তমানে যে ধর্মীয় অবকাঠামো দাঁড়িয়ে রয়েছে, তাতে অন্য কোনও ধর্মীয় স্থাপনার যেকোনও ধরনের পরিবর্তন, সংযোজন বা রূপান্তরের চিহ্ন রয়েছে কিনা তা খুঁজে বের করা। অর্থাৎ, মসজিদের ওই জায়গায় কখনো হিন্দু মন্দির ছিল কিনা, সেটাই অনুসন্ধান করবে কমিটি।

এখন দেখার বিষয় মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ খুঁজতে গিয়ে মসজিদটিকে অক্ষত রাখা হবে কিনা। স্থানীয় মুসলিমরা বাবরী মসজিদের মতো এই সমজিদটিও ভেঙে ফেলা হবে বলে আশঙ্কা করছেন। এদিকে এই রায়ের বিরোধিতা করে তা বাতিলের দাবি জানিয়েছে অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড।
সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশকঃ ট্রাস্ট মিডিয়া হাউস © 2020-2023