May 22, 2024, 6:46 pm
শিরোনাম
বেরোবি ফিল্ম এন্ড আর্ট সোসাইটির নেতৃত্বে সোয়েব ও অর্ণব ইবি রোভার স্কাউটের বার্ষিক তাবুঁবাস ও দীক্ষা অনুষ্ঠান শুরু সেভেন স্টার বাস কাউন্টারের কর্মীদের হামলার শিকার পবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা, আহত ৫ শিক্ষার্থীদের জন্য সাংবাদিকতায় বুনিয়াদি প্রশিক্ষণের আয়োজন করলো নোবিপ্রবিসাস ইবি ছাত্রলীগ সহ-সম্পাদকের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি জাবিতে কুরআনের অনুবাদ পাঠ প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে দেশটা: বিএনপি মহাসচিব ‘চ্যারিটি ফান্ড কেইউ’ এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু পবিপ্রবিতে বিশ্বকবির ১৬৩ তম জন্মজয়ন্তী উদযাপন একজন আইনজীবীর প্রথম দায়িত্ব হচ্ছে মানুষের অধিকার রক্ষার জন্য কাজ করা : অ্যাটর্নি জেনারেল

উন্নয়ন মানে প্রান্তিক মানুষদের ভাল থাকা- গবেষনা অভিজ্ঞতা পর্ব -১

আল হাসিব
  • প্রকাশের সময় : Thursday, April 8, 2021,
  • 88 বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

উন্নয়নের শর্ত অনুযায়ী প্রতিটি মানুষের জীবনমানের পরিবর্তনে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করা রাষ্ট্রের দায়িত্ব। গবেষণায় কাজ করার সুবাদে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনধারণ ও প্রতিনিয়ত জীবনযুদ্ধে টিকে থাকার গল্প শুনে একসময় ভেবেছিলাম একটি গল্পগুচ্ছ তৈরী করবো যা এদেশের প্রতিটি দরিদ্র ও অসহায় মানুষের জীবন সংগ্রামের একটি বাস্তব চিত্র তুলে ধরবে। গত মাসেই রাজধানী ঢাকার প্রাণকেন্দ্রে একটি বস্তিতে কাজের সুবাদে পরিচয় হয় একজন ইলেক্ট্রিশিয়ান হাফিজুর রহমানের সাথে। তিনি এভাবেই বলেছিলেন, “আমার বাড়ি যমুনার ওপাড়ে; আমি বছরে দুইবার বাড়ি যাই। প্রতিদিন আমার সেতু কাজে লাগেনা; প্রতিদিন আমার লাগে কাজ, লাগে খাবার যোগাড় করা। আগে যখন সেতু ছিলোনা তখনও যেতাম; এখনও যাই। এখন আবার পদ্মা সেতু হইতেছে, দক্ষিণবঙ্গের মানুষ এখন তাদের বাড়ি যায়না? ঢাকায় মেট্রোরেল করতেছে। কিন্তু আমরা ঠিক আগের মতই এক বেলা কাজ না পেলে ভাত জোটে না। আমাদের মত শ্রেণীর কি লাভ হল এতে? যাদের টাকার অভাব নেই তারা আরো টাকার মালিক হয়। এটা তো উন্নয়ন নয়। সাধারণ মানুষ আগেও যেমন এখনো তেমন।” এতদিনের কাজের অভিজ্ঞতায় হাফিজুর রহমান ছিলো আমার একমাত্র রিসার্চ স্যম্পল। যিনি আমাকে তার নিজস্ব অভিব্যক্তিতে উন্নয়নের হিসাব বুঝিয়ে দিয়েছিলো যা কিনা আমরা বিভিন্ন বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রী অর্জন করে শিখে থাকি। একইভাবে রাজধানীর বাইরে বিভিন্ন জেলার ইউনিয়ন পর্যায়ে আরো দুর্বিষহ জীবনযাপন করে দেশের অধিকাংশ মানুষ। তারা তাদের মৌলিক অধিকার সম্পর্কে অবগত নয়, তারা জানেনা নারী অধিকার কিংবা স্বাধীনতা কি, তারা স্বাস্থ্য-শিক্ষা ও সচেতনার আড়ালে বসবাস করে। চর অঞ্চলে গোটা ইউনিয়নে ইঞ্জিন চালিত পরিবহন চিন্তাও করা যায়না। দিনে নির্দিষ্ট কয়েকবার নৌকা দিয়ে উপজেলা সদরে কাজের জন্য যাতায়াত করে মানুষ। জরুরী স্বাস্থ্যসেবা বলতে ওষুধ বিক্রেতা, কবিরাজ, দাই এবং সনাতন চিকিৎসা ছাড়া তাদের অন্য উপায় নেই। চরের জমিতে সারাদিন মহাজনের ভুট্টা, মরিচ, সরিষা, ধান আর ডাল চাষ করে দিনশেষে ২০০ টাকা মজুরি নিয়ে ঘরে ফেরা জীবনযোদ্ধা তারা। বিভিন্ন জেলায় অসংখ্য মানুষকে দেখেছি যারা কাজের অভাবে চিন্তার রেখা কপালে এঁকে বসে থাকে। অসংখ্য বৃদ্ধ-বৃদ্ধা গোলপাতায় নিজের নিরাপত্তার জন্য রাত্রিযাপন করে। দিনযাপন করে একবেলা আধবেলা খেয়ে আবার না খেয়ে। তাদের গায়ে পায়ে নেই একজন মানুষ হিসেবে সুন্দরভাবে বেচে থাকার জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ। চোখের দিকে তাকালে যেনো অসহায়ত্ব আর দুর্দশা ছাড়া কোনো স্বপ্ন দেখা যায়না এদের।।আমাদের উন্নয়নের রেখা ঊর্ধ্বগামী কিন্তু সাধারণ প্রান্তিক মানুষ এখনো তাদের মৌলিক অধিকারগুলো উপভোগ করেনা কিংবা আমরা তা নিশ্চিত করতে পারিনি। সম্পদের সুষম বন্টন ও সর্ব ক্ষেত্রে অসমতা হ্রাস করতে না পারলে আমাদের অবকাঠামোগত উন্নয়ন কাঙ্ক্ষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সহায়ক হবে বলে আশা করা যায়না। জীবনধারণের প্রতিটি উপকরনে অসমতা যেনো অভিশাপের মতো ভর করে আছে এদেশের বৃহৎ জনগোষ্ঠীর ওপরে। তাই উন্নয়নের সঠিক নীতি বাস্তবায়ন পারে সমাজকে মানবিক এবং রাষ্ট্রীয় সেবায় লালন করে কাঙ্খিত উন্নয়নের দিকে দেশকে ধাবিত করতে। অন্যথায় উন্নয়নের সকল উদ্দেশ্য ব্যর্থতায় পতিত হবে।
আল হাসিব
ফিল্ড রিসার্চ কোওর্ডিনেটর
ব্রাক জেমস পি গ্রান্ট স্কুল অফ পাবলিক হেলথ্
ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয়

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশকঃ ট্রাস্ট মিডিয়া হাউস © 2020-2023