May 19, 2024, 11:15 pm
শিরোনাম
মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে দেশটা: বিএনপি মহাসচিব ‘চ্যারিটি ফান্ড কেইউ’ এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু পবিপ্রবিতে বিশ্বকবির ১৬৩ তম জন্মজয়ন্তী উদযাপন একজন আইনজীবীর প্রথম দায়িত্ব হচ্ছে মানুষের অধিকার রক্ষার জন্য কাজ করা : অ্যাটর্নি জেনারেল জাবিতে ছাত্রলীগ সম্পাদকের বান্ধবীকে নিয়োগ দিতে তোড়জোড় যুক্তিতর্ক দেখে সবাই ভাবতো ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে এসেছি : শাহ মনজুরুল হক ইবিতে মুজিব মুর‍্যালে এ্যাটর্নি জেনারেলের শ্রদ্ধা নিবেদন  বাংলাদেশ পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে জনগণের নিরাপত্তা দিয়ে আসছে : আইজিপি ইবি অধ্যাপক ড. ইকবাল হোসাইনের আত্মার মাগফিরাতে দোয়া মাহফিল কানাডার বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রসংসদের সভাপতি হলেন জাবির সাবেক শিক্ষার্থী 

করোনার তীব্রতা স্তিমিত হোক বাংলা শব্দের প্রাচুর্যে

ফারহানা ইয়াসমিন
  • প্রকাশের সময় : Wednesday, April 7, 2021,
  • 45 বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

পারস্পরিক সুখ ,দুঃখ, আশা,ভরসা এসমস্ত অনুভূতির সবটাই মানুষ শুনতে এবং জানতে পারে একটি মৌলিক মাধ্যম ‘ভাষা’ দিয়ে। বাঙ্গালীর কাছে ভাষা মানে মরুভূমির বুক থেকে ছিনিয়ে আনা এক টুকরো ঝর্ণার রাশি। যে ঝর্নারাশি ছিনিয়ে আনতে মা-বোনেরা উৎসর্গ করেছে তাদের সম্ভ্রম, মাটির গড়া খাঁটি বীর সেনারা বিলিয়েছে তাদের প্রাণ। কিন্তু অবাক করার মত বিষয় এই যে, সেই বাংলাদেশের মানুষেরা করোনা মহামারী থেকে নিজেকে, সমাজকে এবং দেশকে বাঁচানোর জন্য প্রতিনিয়ত সচেতনভাবে ইংরেজি শব্দ এবং প্রতিশব্দ ব্যবহারের ব্যপকতা বাড়িয়ে চলেছে।।হঠাৎ করেই করোনা ভাইরাসের প্রভাব উৎকণ্ঠায় পৌঁছাচ্ছে। । এরূপ হঠাৎ আক্রমনকে ভয় না করে জয় করার জন্য মনকে শক্ত করাটা এখন সব থেকে বেশি জরুরি। লক্ষনীয় বিষয় হল, করোনার হঠাৎ ভয়ংকর প্রভাব বিস্তারের সাথে সাথে আবার সেই বিদেশি শব্দের প্রচলন বাড়ছে। যেমনঃ- এবার লকডাউন, সোশ্যাল ডিসটান্সিং, মাস্ক ইউজিং, আইসোলেশন, স্যানিটাইজেশন ইত্যাদি শব্দ গুলো আবারও মলাটে বাঁধাই করা বই থেকে সমাজের দারপ্রান্তে চলে এসেছে। হলফ করে এ দাবি করা অসম্ভব কিছু নয় যে, এই বাংলার বুকে এখনও বহুসংখ্যক মানুষ এই শব্দ গুলোর প্রকৃত অর্থ এখনও সঠিকভাবে জানে না। তাহলে কিভাবে তারা এই শব্দ গুলোর তাৎপর্য মেনে চলে করোনাকে জয় করবে। ক্ষতিকারক যেকোনকিছু প্রতিহত করতে হলে কৌশলগত পরিকল্পনা অবলম্বন করাই সর্বোত্তম পন্থা । যেহেতু আমরা বাঙালি, তাই আমাদের উচিত হবে বিদেশি শব্দগুলো ব্যবহার না করে বাংলা শব্দের লিখন এবং বলন চর্চা করা। এবং অর্থবহুল সুন্দর ও জনহিতৈষী বাংলা শব্দ খুঁজে জনসম্মুখে প্রকাশ করা। কারণ যে একজন কৃষক কিংবা জেলে সে এই শব্দগুলোর অর্থ বুঝবে না, যে কিনা একজন ভিক্ষুক সে নিশ্চয়ই পেটের যন্ত্রণা নিবারণের আশায় ভিক্ষা না করে এই শব্দ গুলোর অর্থ জানার জন্য ইংরেজি ব্যাকারণ খুঁজবে না। এছাড়াও কামার, কুমার ,তাঁতি ও দিনমুজুর সহ আরো অনেক পেশার লোক বাংলার বুকে বসবাস করে। এদের পক্ষে প্রত্যন্ত অঞ্চলের সাদামাটা পরিবেশে এই শব্দগুলোর প্রকৃত অর্থ এবং সঠিক ব্যবহারিক তাৎপর্য খুঁজে বের করা সম্ভবপর নয়। বলছি না ইংরেজি শব্দ ব্যবহার করা মহা অন্যায়। বাংলার পাশাপাশি যোগ্য মানুষ হিসাবে নিজেকে প্রমাণ করতে ও বর্হিবিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলার জন্য আমাদের ইংরেজি জানা দরকার। ঠিক তেমনি একজন বাঙ্গালী হিসাবে এবং বাংলার মানুষকে বর্তমানে ভয়াবহ মহামারী থেকে রক্ষা করার জন্য বাংলা ব্যবহার করাটা কম জরুরি নয়। বর্তমানে বিশ্বের সর্বাধিক জাতি ইংরেজি ভাষাতে কথা বলে। মানুষের জ্ঞান এবং যোগ্যতা বিকাশে ভাষার কোনো বিকল্প নেই সুতরাং সর্বোচ্চ ব্যবহৃত ভাষাগুলো আমাদের আয়ত্তে থাকা দরকার। তবে মনে রাখতে হবে, বাংলার বুকে বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষ একসাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বসবাস করছে, তারা যেন কল্যানমূলক ব্যাবস্থাপনার সরাসরি অংশিদার হতে পারে ভাষার মাধ্যমে। একেকটি সমস্যা সমান সমাধান যতই দেওয়া হোক, সমস্যার নিয়ামক টলবেনা যতক্ষণ আমার নিজেকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করব আর মাতৃভাষাকে কথায় ধারণ করব। দেশের কথা ভেবে করোনাকে জয় করার জন্য দেশি শব্দ ও ভাষার দিকে কর্তৃপক্ষের সজাগ দৃষ্টি কামনা করছি। মোরা নিজ দেশের সম্ভাবনার অস্ত্র ও শক্তি ব্যবহার করে করোনাকে অচিরেই জয় করতে পারবো ইনশাআল্লাহ।

লেখকঃ শিক্ষার্থী, সমাজবিজ্ঞান বিভাগ, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশকঃ ট্রাস্ট মিডিয়া হাউস © 2020-2023