May 20, 2024, 7:18 pm
শিরোনাম
মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে দেশটা: বিএনপি মহাসচিব ‘চ্যারিটি ফান্ড কেইউ’ এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু পবিপ্রবিতে বিশ্বকবির ১৬৩ তম জন্মজয়ন্তী উদযাপন একজন আইনজীবীর প্রথম দায়িত্ব হচ্ছে মানুষের অধিকার রক্ষার জন্য কাজ করা : অ্যাটর্নি জেনারেল জাবিতে ছাত্রলীগ সম্পাদকের বান্ধবীকে নিয়োগ দিতে তোড়জোড় যুক্তিতর্ক দেখে সবাই ভাবতো ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে এসেছি : শাহ মনজুরুল হক ইবিতে মুজিব মুর‍্যালে এ্যাটর্নি জেনারেলের শ্রদ্ধা নিবেদন  বাংলাদেশ পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে জনগণের নিরাপত্তা দিয়ে আসছে : আইজিপি ইবি অধ্যাপক ড. ইকবাল হোসাইনের আত্মার মাগফিরাতে দোয়া মাহফিল কানাডার বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রসংসদের সভাপতি হলেন জাবির সাবেক শিক্ষার্থী 

ছাত্র বহিষ্কারের ঘটনায় উত্তাল শেকৃবি

শেকৃবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : Friday, October 21, 2022,
  • 0 বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

শিক্ষকের সঙ্গে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শিক্ষককে নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য এবং ফেসবুকে স্টোরি শেয়ার করায় শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ জন শিক্ষার্থীকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার এবং ১ জন শিক্ষার্থীকে এক সেমিস্টারের জন্য বহিষ্কার করা হয়। একই সাথে গাঁজা সেবনের দায়ে ১ জনকে সতর্ক করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত ১৮ অক্টোবরের এক নোটিশে গতকাল বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানা যায়।

বহিস্কৃতদের মধ্যে স্থায়ীভাবে বহিস্কৃত দুই জন শিক্ষার্থী হলেন, মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত সাগর দাস এবং মোঃ রায়হান আলিক। বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর আব্দুল কাইউম এর বাসার পাশের গাছ থেকে সাজনা পাতা পাড়ার সময় শিক্ষকের সাথে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করার অভিযোগে স্থায়ীভাবে তাদের বহিষ্কার করা হয়। শৃঙ্খলা কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাদের বিরুদ্ধে ভর্তি বাতিল এবং স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

কৃষি সম্প্রসারণ ও ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগে এম এস এ অধ্যায়নরত আরেক শিক্ষার্থী মোঃ শাকিলুজ্জামানকেও বহিষ্কার করা হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সম্পর্কে নেতিবাচক মন্তব্য করায় তাকে শৃঙ্খলা বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী তার ক্ষেত্রেও ভর্তি বাতিলসহ স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়। তবে বহিস্কৃত এ শিক্ষার্থী জানান, ওই সময় তার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছিলো।

কৃষি অনুষদের লেভেল-২ সেমিস্টার-১ এর শিক্ষার্থী তন্ময় সরকারকে এক সেমিস্টারের জন্য বহিষ্কার এবং ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক মোঃ নুরুদ্দীন মিয়ার নামে ফেইসবুকে আপত্তিকর ও সম্মানহানিকর এড স্টোরি দেওয়ায় তার বিরুদ্ধে এই ব্যাবস্থা নেওয়া হয়। তবে বহিস্কৃত শিক্ষার্থী তন্ময় জানান, সেটা একটা ফানি (হাস্যকর) পোস্ট ছিলো। কোন শিক্ষকের বিরুদ্ধে কিছু ছিলো না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে মাদকদ্রব্য পরিবহন এবং সেবন করায় ইনস্টিটিউট অব সীড টেকনোলজীতে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত আরেক শিক্ষার্থী আশিস সূত্রধরকে সতর্কিকরণ করা হয়। এক্ষেত্রে ওই শিক্ষার্থীকে ক্যাম্পাসের ভিতরে মাদকদ্রব্য (গাঁজা) সেবন ও পরিবহন করা থেকে বিরত থাকার জন্য সতর্ক করা হয়।

বহিস্কৃত শিক্ষার্থীরা এসব অভিযোগকে ভিত্তিহীন এবং এ ধরনের ঘটনা ঘটেনি বলে অভিহিত করে প্রশাসনের এ ভিত্তিহীন সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার দাবি জানান।

তারা আরও জানান,বিশ্ববিদ্যালয় তাদেরকে শোকজ করলে তারা যথাযথ জবাব দেন এবং সেখানে তারা নিজেদেরকে নির্দোষ দাবি করেন। শিক্ষকদের সাথে ব্যক্তিগতভাবে দেখা করে নিজেদেরকে নির্দোষ দাবি করেন বলে জানান তারা।

বহিষ্কারাদেশ দেয়ার পর আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে শিক্ষার্থীদের একাংশ প্রশাসনের বিরূদ্ধে ক্ষুব্ধ হয়ে এবং প্রক্টরের পদত্যাগের দাবি জানিয়ে প্রশাসনিক ভবনের সামনে জড়ো হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. হারুনর রশীদকে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখন আমি কোনো মন্তব্য দিতে চাচ্ছি না। একটু দেখি, এ বিষয়ে পরে বলব।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশকঃ ট্রাস্ট মিডিয়া হাউস © 2020-2023