May 22, 2024, 6:03 pm
শিরোনাম
বেরোবি ফিল্ম এন্ড আর্ট সোসাইটির নেতৃত্বে সোয়েব ও অর্ণব ইবি রোভার স্কাউটের বার্ষিক তাবুঁবাস ও দীক্ষা অনুষ্ঠান শুরু সেভেন স্টার বাস কাউন্টারের কর্মীদের হামলার শিকার পবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা, আহত ৫ শিক্ষার্থীদের জন্য সাংবাদিকতায় বুনিয়াদি প্রশিক্ষণের আয়োজন করলো নোবিপ্রবিসাস ইবি ছাত্রলীগ সহ-সম্পাদকের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি জাবিতে কুরআনের অনুবাদ পাঠ প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে দেশটা: বিএনপি মহাসচিব ‘চ্যারিটি ফান্ড কেইউ’ এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু পবিপ্রবিতে বিশ্বকবির ১৬৩ তম জন্মজয়ন্তী উদযাপন একজন আইনজীবীর প্রথম দায়িত্ব হচ্ছে মানুষের অধিকার রক্ষার জন্য কাজ করা : অ্যাটর্নি জেনারেল

রাবিতে ৫ম ধাপের মেধা তালিকা প্রকাশের দাবি

মোঃ সোহাগ আলী, রাবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : Wednesday, March 16, 2022,
  • 5 বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) স্নাতক প্রথম বর্ষে প্রায় শতাধিক আসন ফাঁকা থাকলেও আর ভর্তি নেওয়া হবে না বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এদিকে ৫ম ধাপের মতো মেরিটলিস্ট চান ওয়েটিং লিস্টে থাকা শিক্ষার্থীরা। এবিষয়ে গত সোমবার প্লাকার্ড হাতে এক শিক্ষার্থীকে নীরব প্রতিবাদও জানাতে দেখা গেছে রাবি প্রশাসন ভবনের সামনে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২১ ডিসেম্বর থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের ক্লাস শুরু হয়েছে। সে সময়ও সব আসনের বিপরীতে শিক্ষার্থী পায়নি বিশ্ববিদ্যালয়টি। তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘এ’ ইউনিটে ১২৭টি, ‘বি’ ইউনিটে ৯৫টি এবং ‘সি’ ইউনিটে ১৫৫টি আসন ফাঁকা ছিল। পরে কয়েকবার ভর্তির সময়সীমা বাড়িয়ে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়।

সর্বশেষ তথ্যমতে, এ বছর ‘এ’, ‘বি’ ও ‘সি’ ইউনিটে চার হাজার ১৭৩ আসন সংরক্ষিত ছিল। যেখানে ‘সি’ ইউনিটে কোনো আসন আর ফাঁকা নেই। তবে ‘বি’ ইউনিটে ১০টি এবং ‘এ’ ইউনিটে প্রায় ৮০টির মতো আসন ফাঁকা রয়েছে।

ওয়েটিং লিস্টে থাকা রুবায়েত হাসান ফাহিম বলেন, এ বছর ভর্তি পরীক্ষায় ‘এ’ ইউনিটে ৬৬.৩৫ নম্বর পাই। আমার সাবজেক্ট ওয়েটিং ৩ নম্বর রয়েছে। এমন অবস্থায় মেরিট দিলেই আমি সুযোগ পাবো। আমার মতো অনেক শিক্ষার্থী যারা সাবজেক্ট ওয়েটিং ১ম ও ২য় নম্বর আছে মেরিট লিস্ট দিলেই স্বপ্ন পূরণ হবে।

মেহেদী হাসান হৃদয় নামের আরেক শিক্ষার্থী বলেন, সাবজেক্ট পাবার খুব কাছে থেকেও মেরিট না দেওয়ায় সাবজেক্ট পাচ্ছি না। এমন অবস্থায় রাবি প্রশাসন যদি ওই ফাঁকা আসনগুলো পূরণ করতো তাহলে আমার মতো অনেকের স্বপ্ন পূরণ হতো।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেন্টারে পরিচালক অধ্যাপক বাবুল ইসলাম জানান, ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি কার্যক্রম শেষ হয়েছে।

তিনি আরও জানান, প্রতি বছরই কম-বেশি আসন ফাঁকা থাকে। আসন ফাঁকা থাকা সাপেক্ষে মাইগ্রেশন হয়ে অনেক শিক্ষার্থী তাদের পছন্দের তালিকার ওপরের সাবজেক্টে ভর্তির সুযোগ পায়। এভাবে প্রতিবছর ভর্তি কার্যক্রম শেষে কিছু আসন ফাঁকা থেকে যায়।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশকঃ ট্রাস্ট মিডিয়া হাউস © 2020-2023