May 21, 2024, 1:55 pm
শিরোনাম
জাবিতে কুরআনের অনুবাদ পাঠ প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে দেশটা: বিএনপি মহাসচিব ‘চ্যারিটি ফান্ড কেইউ’ এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু পবিপ্রবিতে বিশ্বকবির ১৬৩ তম জন্মজয়ন্তী উদযাপন একজন আইনজীবীর প্রথম দায়িত্ব হচ্ছে মানুষের অধিকার রক্ষার জন্য কাজ করা : অ্যাটর্নি জেনারেল জাবিতে ছাত্রলীগ সম্পাদকের বান্ধবীকে নিয়োগ দিতে তোড়জোড় যুক্তিতর্ক দেখে সবাই ভাবতো ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে এসেছি : শাহ মনজুরুল হক ইবিতে মুজিব মুর‍্যালে এ্যাটর্নি জেনারেলের শ্রদ্ধা নিবেদন  বাংলাদেশ পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে জনগণের নিরাপত্তা দিয়ে আসছে : আইজিপি ইবি অধ্যাপক ড. ইকবাল হোসাইনের আত্মার মাগফিরাতে দোয়া মাহফিল

ওয়াইফাই সংযোগ নিয়ে রাবির বঙ্গমাতা হল কর্তৃপক্ষের দ্বিমুখী মন্তব্য

মোঃ সোহাগ আলী, রাবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : Friday, February 11, 2022,
  • 0 বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা হলের নবনির্মিত তলাগুলোতে নেই ওয়াইফাই সংযোগ। হলের চতুর্থ, পঞ্চম ও ষষ্ঠ তলায় ছাত্রী উঠানোর প্রায় চারমাস হয়ে গেলেও এখনো বসানো হয়নি কোনো ওয়াইফাই রাউটার।

যদিও প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক শর্মিষ্ঠা রায় গত বছরের ১৫ নভেম্বরের মধ্যে হলে ওয়াইফাই সংযোগ করে দেওয়ার কথা দিয়েছিলেন বলে জানান হলের একাধিক শিক্ষার্থী।

তবে বর্তমানে হল প্রাধ্যক্ষ বলছেন, ‘শিক্ষার্থীদের তখন বলেছিলাম, তবে পরে তারা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। প্রশাসন এ ব্যাপারে তাদের আশ্বস্ত করেছে এবং এটা দ্রুত হবে বলে প্রশাসন জানিয়েছে।’

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বলছে, ‘এটি হল প্রাধ্যক্ষ এবং আইসিটি সেন্টার দেখবেন। এ ব্যাপারে হল প্রাধ্যক্ষকে প্রতিটি ফ্লোরে রাউটার স্থাপন করে দেওয়ার নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছিল।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, করোনার প্রাদুর্ভাব কমার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিলে গত বছরের ১৭ অক্টোবর থেকে বঙ্গমাতা হলের নবনির্মিত চতুর্থ, পঞ্চম ও ষষ্ঠ তলায় ছাত্রী উঠানো শুরু হয়েছিল। এরপর ওয়াইফাই সংযোগের ব্যাপারে শিক্ষার্থীরা মৌখিক এবং গণস্বাক্ষর নিয়ে প্রাধ্যক্ষ বরাবর আবেদন জানালে তিনি গত বছরের ১৫ নভেম্বরের মধ্যে ওয়াইফাই সংযোগ করে দিতে চেয়েছিলেন। পরে কোনো সমাধান না পেয়ে হলের ছাত্রীরা একই দাবী নিয়ে উপাচার্যের কাছেও গিয়েছিলেন। এসময় উপাচার্যও তাদের আশ্বস্ত করেছিলেন। হল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনাও দিয়েছিলেন। কিন্তু এপর্যন্ত হল কর্তৃপক্ষ কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

এ বিষয়ে বঙ্গমাতা হলের আবাসিক শিক্ষার্থী সানজিদা আলম সিমা বলেন, ‘বর্তমানে করোনার কারণে আমাদের বিভাগের ক্লাসগুলো অনলাইনে হচ্ছে। এছাড়া আমাদের পড়াশুনা সম্পর্কিত নানা তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ, দেশ বিদেশের খবরাখবর জানা, যোগাযোগ, বিনোদনসহ বিভিন্ন কাজের জন্য আমরা ইন্টারনেট ব্যবহার করি। এসব কাজে ডেটা কিনে ইন্টারনেট ব্যবহার করা আমাদের জন্য অনেক ব্যয়বহুল। আর অনেক রুমে তো ডেটা দিয়েও ক্লাস করা যায় না, ২জি-১জি হয়ে যায়।’

তিনি আরো বলেন, ‘বছর শেষে শিক্ষার্থীদের থেকে ইন্টারনেট বিল নেওয়া হয়। আমরা টাকা দিচ্ছি কিন্তু বিনিময়ে কিছু পাচ্ছি না। শীঘ্রই প্রশাসন এই তিনটি তলার ওয়াইফাই সমস্যা সমাধানে ব্যবস্থা নিবে বলে আমরা আশা করি।’

হলের আরেক আবাসিক শিক্ষার্থী নাজমুন নাহার জেমি বলেন, ‘ইন্টারনেটকে তথ্যের সমুদ্র বলা হয়। সারা বিশ্বের মানুষ সেই সমুদ্র থেকে তাদের প্রয়োজনীয় তথ্য পেতে পারে। বিশ্বায়নের এই যুগে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষার্থী ইন্টারনেট সুবিধা থেকে বঞ্চিত থাকা অত্যন্ত দুঃখজনক ব্যাপার। হল প্রশাসন ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়ার জন্য আশ্বস্ত করলেও এখনো তা বাস্তবায়িত হয়নি। হল ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ, আংশিক নয় হলের সকল মেয়েদেরকেই ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ করে দিন।’

জানতে চাইলে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক শর্মিষ্ঠা রায় বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের আমি আশ্বস্ত করেছিলাম। তখন বলেছিলাম চেষ্টা করব, কেননা সবসময় তো আর একবারে ষষ্ঠ তলা পর্যন্ত ওয়াইফাই সংযোগের ব্যবস্থা করার সক্ষমতা থাকেনা। পরে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। প্রশাসন এ ব্যাপারে তাদের আশ্বস্ত করেছে এবং এটা দ্রুত হবে বলে জানিয়েছে। পররবর্তীতে প্রশাসনের সাথে আমাদের ও কথা হয়ে গেছে, তারা আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন এবং দ্রুত হবে বলেছেন।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, বিষয়টি হলের শিক্ষার্থীরা আমাকে জানালে আমি হল প্রাধ্যক্ষকে প্রতিটি ফ্লোরে রাউটার স্থাপন করে দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছিলাম। এ ব্যাপারে আইসিটি সেন্টারকেও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। এছাড়া হল কর্তৃপক্ষ ওয়াইফাই সংযোগ না দিয়েই নবনির্মিত তলাগুলোতে শিক্ষার্থীদের তুলে কেনো! আমি বিষয়টি নিয়ে প্রাধ্যক্ষকের সঙ্গে কথা বলব।’

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক বাবুল ইসলাম বলেন, ‘নবনির্মিত তলাগুলোতে ওয়াইফাই সংযোগের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় ও বঙ্গমাতা হল কর্তৃপক্ষ আমাদের কাছে পরিকল্পনা চেয়েছিল। আমরা প্রথমে এক পরিকল্পনা দেই, সেটাতে বাজেট বেশি হওয়ায় পুনরায় আরেকবার নতুন পরিকল্পনা দিয়েছি। এখন সেটা বাস্তবায়ন করার দায়িত্ব হল কর্তৃপক্ষের।’

এর প্রেক্ষিতে আবার জানতে চাইলে বঙ্গমাতা হল প্রাধ্যক্ষ বলেন, করোনাকালীন সময়ে হল বন্ধ থাকায় অনেক রাউটার আমাদের নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। এতদিনে নিচের তিনটি তলার নষ্ট রাউটারগুলোর জায়গায় নতুন রাউটার স্থাপন করা হয়েছে। আর উপরের তিনটি তলায় সব নতুন রাউটার স্থাপন করতে হবে। এক্ষেত্রে পর্যাপ্ত ফান্ডিং না থাকায় একটু দেরি হচ্ছে। তবে প্রক্রিয়াটি চলমান রয়েছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশকঃ ট্রাস্ট মিডিয়া হাউস © 2020-2023