May 22, 2024, 8:12 pm
শিরোনাম
বেরোবি ফিল্ম এন্ড আর্ট সোসাইটির নেতৃত্বে সোয়েব ও অর্ণব ইবি রোভার স্কাউটের বার্ষিক তাবুঁবাস ও দীক্ষা অনুষ্ঠান শুরু সেভেন স্টার বাস কাউন্টারের কর্মীদের হামলার শিকার পবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা, আহত ৫ শিক্ষার্থীদের জন্য সাংবাদিকতায় বুনিয়াদি প্রশিক্ষণের আয়োজন করলো নোবিপ্রবিসাস ইবি ছাত্রলীগ সহ-সম্পাদকের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি জাবিতে কুরআনের অনুবাদ পাঠ প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে দেশটা: বিএনপি মহাসচিব ‘চ্যারিটি ফান্ড কেইউ’ এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু পবিপ্রবিতে বিশ্বকবির ১৬৩ তম জন্মজয়ন্তী উদযাপন একজন আইনজীবীর প্রথম দায়িত্ব হচ্ছে মানুষের অধিকার রক্ষার জন্য কাজ করা : অ্যাটর্নি জেনারেল

যবিপ্রবির বাসের সিট যেন সোনার হরিণ

যবিপ্রবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : Tuesday, January 4, 2022,
  • 0 বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের(যবিপ্রবি) পরিবহন প্রশাসন যেন নাক ডেকে ঘুমাচ্ছেন। শিক্ষার্থীদের একাধিক অভিযোগ থাকা সত্বেও তারা কোন ব্যবস্থা গ্রহন করছেন না। নিয়মিত শিডিউল বিপর্যয় সহ মেরামতের জন্য একাধিক বাস ফেলে রেখে বাসের কৃত্রিম সংকট তৈরি করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের লিখিত পরীক্ষা শেষ। কিন্তু প্রায় সবগুলো বিভাগের ল্যাব ভাইবা থিসিস সহ একাধিক একাডেমিক কার্যক্রমের জন্য শিক্ষার্থীদেরকে নিয়মিত ক্যাম্পাসে যেতে হয়। এজন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের দেওয়া শিডিউল অনুসারে নিয়মিত বাস চলে নামে মাত্র। কিছু কিছু সময় শিক্ষার্থীদের কে ২০ মিনিটের অধিক সময় অপেক্ষা করতে হয় ফলে অনেক সময় শিক্ষার্থীরা ল্যাব ভাইবা মিস করেন।

অন্যদিকে পরিবহন সংকটের কারণে প্রয়োজনের অতিরিক্ত শিক্ষার্থী বাসে দাড়িয়ে গাদাগাদি করে যাওয়া আসা করছেন। ফলে মানা হচ্ছে না কোন স্বাস্থবিধি। পরিবহন সমস্যা নিয়ে আক্তারুল ইসলাম নামের একজন শিক্ষার্থী বলেন , প্রায় প্রতিদিনই ৫ টার বাসে আমাদের দাঁড়িয়ে যেতে হয় । গতদিন জায়গার সংকটে স্টাফদের বাসে কয়েকজনকে যেতে হয়েছে। আমারা একাধিকবার এই নিয়ে অভিযোগ জানিয়েছি তবে পর্যাপ্ত বাস থাকা সত্ত্বেও আমাদেরকে নিয়মিত দাড়িয়ে গাদাগাদি করে স্বাস্থ্যঝুকি নিয়ে যাওয়া আসা করতে হচ্ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক শিক্ষার্থী বলেন, যবিপ্রবিতে চান্স পাওয়ার চেয়ে বাসে সিট পাওয়া যেন আরো কঠিন।

সার্বিক বিষয়ে জানতে প্রধান পরিবহন প্রশাসক প্রফেসর ড. মোঃ জাফিরুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন “আমি ঢাকায় ছুটিতে আছি, এই বিষয়ে জানতে চাইলে পরিবহন দপ্তরে যোগাযোগ করুন”।
পরবর্তীতে সহকারী পরিবহন প্রশাসক মোহাম্মাদ জাহাঙ্গীর আলম কাছে এই বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দুপুর ১২:০০ ঘটিকায় বাস শুধুমাত্র যেদিন বিকালে পরীক্ষা থাকে ওইদিন চলাচল করে । আজ বিকালে কোন বিভাগে পরীক্ষা ছিল না এজন্য বাস যায়নি। আমাদের শিক্ষকদের যে গাড়িটির সমস্যা ছিল তার প্রয়োজনীয় পার্টসগুলো আমরা সংগ্রহ করেছি, দুই-একদিনের মধ্যে মাইক্রোবাসটি চলাচল উপযোগী হয়ে যাবে। সিঙ্গেল বাসের সমস্যা ও যন্ত্রাংশের বিষয়ে প্রধান পরিবহন প্রশাসক জাফিরুল ইসলাম স্যার ও কর্মকর্তা শাহেদ রেজা ভাল বলতে পারবেন । শিক্ষার্থীদের যাতায়াত সমস্যা সমাধানের জন্য আমরা ইতিমধ্যে মিটিং করেছি । খুব অল্প সময়ের মধ্যে আমরা প্রয়োজনীয় বাবস্থা গ্রহন করে সমস্যাগুলো সমাধান করব।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশকঃ ট্রাস্ট মিডিয়া হাউস © 2020-2023