May 20, 2024, 6:24 pm
শিরোনাম
মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে দেশটা: বিএনপি মহাসচিব ‘চ্যারিটি ফান্ড কেইউ’ এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু পবিপ্রবিতে বিশ্বকবির ১৬৩ তম জন্মজয়ন্তী উদযাপন একজন আইনজীবীর প্রথম দায়িত্ব হচ্ছে মানুষের অধিকার রক্ষার জন্য কাজ করা : অ্যাটর্নি জেনারেল জাবিতে ছাত্রলীগ সম্পাদকের বান্ধবীকে নিয়োগ দিতে তোড়জোড় যুক্তিতর্ক দেখে সবাই ভাবতো ভালো প্রতিষ্ঠান থেকে এসেছি : শাহ মনজুরুল হক ইবিতে মুজিব মুর‍্যালে এ্যাটর্নি জেনারেলের শ্রদ্ধা নিবেদন  বাংলাদেশ পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে জনগণের নিরাপত্তা দিয়ে আসছে : আইজিপি ইবি অধ্যাপক ড. ইকবাল হোসাইনের আত্মার মাগফিরাতে দোয়া মাহফিল কানাডার বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রসংসদের সভাপতি হলেন জাবির সাবেক শিক্ষার্থী 

যবিপ্রবি মেডিকেল সেন্টারের বেহাল দশা দায়িত্ব কার

যবিপ্রবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : Tuesday, December 28, 2021,
  • 4 বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নানা সমস্যায় জর্জরিত যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) ডাঃ এম আর খান মেডিকেল সেন্টার। মেডিকেল সেন্টারে নেই কোনো উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থা। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সাড়ে চার হাজার শিক্ষার্থী ও প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের জন্য রয়েছে মাত্র চারজন ডাক্তার । তার মধ্যে প্রধান মেডিকেল অফিসার ডাঃ দীপক কুমার মন্ডল ও ডাঃ নুরজাহান দুজনেই অনেকদিন যাবত ছুটি রয়েছেন। যবিপ্রবির এম আর খান মেডিকেল সেন্টারের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের রয়েছে নানান অভিযোগ। চিকিৎসা সেবা নিতে গিয়ে শিক্ষার্থীরা প্রতিনিয়ত পড়ছে বিপাকে। তাছাড়াও চিকিৎসকের অভাবে পাচ্ছে না প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা, নেই পর্যাপ্ত পরিমাণ ঔষধ সরবারহ। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ মেডিকেল সেন্টারে সব সময় ডাক্তার পাওয়া যায় না , তাছাড়াও প্রেসক্রিপশনে লেখা ঔষধের নাম মাত্র কয়েকটি দিয়ে বাকিগুলো বাইরে থেকে কিনে নিতে বলা হয়। শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, দুইটা হলের শিক্ষার্থীদের রাত্রিকালীন কোন সেবা নেই। কোন শিক্ষার্থী অসুস্থ হলে গেলেও প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার মতো কোন ব্যবস্থা নেই। প্রাথমিক চিকিৎসা নিতে রাতে আবার শহরে যেতে হয়। ছেলেরা যেতে পারলে ও মেয়েদের জন্য এটা খুবই কষ্টকর। এই বিষয়ে জানতে চাইলে যবিপ্রবির ডাঃ এম আর খান মেডিকেল সেন্টারের ভারপ্রাপ্ত প্রধান মেডিকেল অফিসার ডাঃ নুসরাত জামান বলেন, আমি ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি এক্ষেত্রে আমার অনেক সীমাবদ্ধতা রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে আমাকে শুধুমাত্র রুটিন দায়িত্ব পালন করার জন্য বলা হয়েছে কিন্তু অর্থনৈতিক কোন দায়িত্ব আমাকে দেওয়া হয়নি। তিনি বলেন এখানে ঔষধ এবং চিকিৎসকের সংকট রয়েছে এটা সত্য। আমরা আমাদের পক্ষে যতটুকু দেওয়া সম্ভব ততটুকু দেওয়ার চেষ্টা করছি। ইতোমধ্যে ঔষধের সংকট সমাধানের জন্য আমরা নতুন করে প্রায় তিনলক্ষ টাকার ঔষধ সরবারহ করার বাবস্থা করেছি। আশা করি খুব দুরুত আমরা ঔষধগুলো হাতে পাব।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশকঃ ট্রাস্ট মিডিয়া হাউস © 2020-2023